ডেস্ক।।ব্যাংকবীমা২৪.কম

সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

ভারতকে ২৫৩ রানের টার্গেট আফগানদের

ঝড়ো ব্যাটিং করে ইনিংসের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান মোহাম্মদ শাহজাদ যখন বিদায় নিলেন স্কোর বোর্ডে তখন ১৮০ রান আফগানদের, নেই ৬ উইকেট। শুরু থেকে একা লড়াই করতে থাকা শাহজাদের পর হাল ধরলেন অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবী। এই দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের ব্যাটে ভর করেই ২৫২ রানের সংগ্রহ পেয়েছে আফগানিস্তান।

এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচে মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুবাইয়ে টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেন আফগান অধিনায়ক আসগর আফগান। কিন্তু এই সিদ্ধান্ত ভুল প্রমাণিত হতো যদি না একপ্রান্তে একাই ব্যাট হাতে ঝড় তুলতেন ওপেনার শাহজাদ।

বিপরীত প্রান্তে তার সঙ্গীদের রানের হিসেবটা দেখলেই বুঝা যাবে কতটা বিশেষ ব্যাটিং করেছেন তিনি। শাহজাদের পর বাকি পাঁচ ব্যাটসম্যানের রান যথাক্রমে-৫, ৩, ০, ০, ১৫। এরমধ্যে ওপেনিং জুটিতে এসেছে ৬৫ রান, যার ৬০ রান একাই করেছেন শাহজাদ।

দলীয় ৬৫-৮২ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারায় আফগানিস্তান। কিন্তু স্রোতের বিপরীতে একা লড়াই করে যান শেহজাদ। তুলে নেন ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি। ৩৭ বলে হাফসেঞ্চুরি করা শাহজাদ ভারতের বিপক্ষে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নিতে খেলেন ৮৮ বল (১০টি চার আর ৬টি ছক্কাসহ)।

দলীয় ১৮০ রানে ষষ্ঠ উইকেট হিসেবে শেহজাদ যখন ভারতীয় স্পিনার কেদার যাদবের বলে দিনেশ কার্তিকের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তখন তার নামের পাশে ১১৬ বলে ১২৪ রানের ঝলমলে এক ইনিংস যুক্ত হয়ে গেছে।

শেহজাদের পর ব্যাট হাতে লড়াই করেন মোহাম্মদ নবী ও নাজিবুল্লাহ জাদরান। ৫৬ বল খেলে ৩ চার আর ৪ ছক্কায় ৬৪ রান করে খলিল আহমেদের শিকার হন নবী।

শেষদিকে মোহাম্মদ রশিদের ১৯ বলে ১২ আর নাজিবুল্লাহ’র ২০ বলে ২০ রানের বদৌলতে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৫২ রানের পুঁজি সংগ্রহ করেছে আফগানিস্তান।

১০ ওভারে ৪৬ রান দিয়ে ভারতের সবচেয়ে সফল বোলার বাঁহাতি স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজা। আরেক স্পিনার কুলদীপ যাদব পেয়েছেন ২ উইকেট। ১টি করে উইকেট পেয়েছেন খলিল, চাহাল ও কেদার যাদব।

এদিকে এ ম্যাচের মধ্যদিয়ে টিম ইন্ডিয়ার নেতৃত্বে আবারও ফিরলেন মাহেন্দ্র সিং ধোনি। দিন হিসেবে যা ৬৯৬ দিন পর। তবে এ ম্যাচে দলনেতা হয়ে দারুণ এক কীর্তিও গড়েছেন তিনি। এটি তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ২০০তম ম্যাচে অধিনায়ক হওয়া।

চলতি আসরে ইতোমধ্যে ফাইনাল নিশ্চিত করা ভারতের এ ম্যাচে পাঁচজন নিয়মিত ক্রিকেটারকে বসিয়ে রাখা হয়েছে। যেখানে রয়েছেন বিরাট কোহলি বিশ্রামের কারণে এই টুর্নামেন্টে নেতৃত্ব পাওয়া রোহিত শর্মাও।

অন্যদিকে সুপার ফোরে দুই ম্যাচ হেরে এরইমধ্যে এশিয়া কাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে আফগানিস্তানের। আজকের ম্যাচটি তাই দুই দলের জন্যই শুধুই নিয়ম রক্ষার ম্যাচ।