ডেস্ক।।ব্যাংকবীমা২৪.কম

সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮

সাপের সঙ্গে ঘর! মাটি খুঁড়তেই ৩০-৩৫টি…

ঘরের নীচে বাসা বেঁধেছিল বিষধর সাপ। আর তার জেরেই বসতবাড়ি ভেঙে আশ্রয় নিতে হল রাস্তায়। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কালনায়।কালনার বাসিন্দা দিলদার শাহ। তিন কামরার কাঁচা বাড়িতে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে সংসার। না, একটু ভুল বলা হল। শুধু স্ত্রী-সন্তান নয়। দিলদার শাহের সংসারে ছিল আরও কমপক্ষে ৩৫ জন ‘সদস্য’। যারা প্রত্যেকেই মা মনসার ‘সন্তান’।

রাত হলেই ঘরের মধ্যে ফোঁস ফোঁস শব্দ। পাড়াতেও অবাধ বিচরণ। দিলদার শাহের বাড়ির নীচে বাসা বেঁধেছিল কমপক্ষে ৩৫টি সাপ। সাপের ভয়ে একদিকে যেমন ঘরের মধ্যে সিঁটিয়ে থাকতেন দিলদার শাহ। ঠিক তেমনই আতঙ্কে দিন কাটাতেন পাড়া প্রতিবেশীরা। বাড়িটা দিলদারের হলেও ‘রাজত্ব’ ছিল সাপেদেরই।

কী করে সাপেদের এই ‘সাম্রাজ্য’ থেকে বেঁচে ফেরা যায়? তা নিয়ে বিস্তর ভাবনাচিন্তা করেন দিলদার শাহ। অনেকেই অনেক বুদ্ধি দেন। শেষপর্যন্ত দিলদার ঠিক করেন নিজের বাড়িটাই ভেঙে ফেলবেন।

যেমন ভাবা, তেমন কাজ। সাপেদের না মেরে নিজের কাঁচা বসতবাড়িটাই ভেঙে ফেলেন দিলদার শাহ। বাড়ি ভাঙতেই ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫টি সাপ বেরিয়ে আসে। যারমধ্যে বিষধর সাপও রয়েছে।

গ্রামবাসীদের অনুমান, ওই স্থানে মাটির নীচে আরও সাপ রয়েছে। এদিকে সাপের আতঙ্কে বাড়ি ভেঙে ফেলার পর এখন রাস্তার ধারে ত্রিপল খাটিয়ে পরিবারকে নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন দিলদার শাহ।