স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ।।ব্যাংকবীমা২৪.কম

জুন ১, ২০১৮

দূর্ঘটনায় সাংবাদিক সানি আহত,নিহত পিএ

যাত্রাবাড়ী বিশ্বরোডে পিক্যাব ভ্যানের সঙ্গে সিএনজির সংঘর্ষে গুরুতর আহত বিশিষ্টি সাংবাদিক কলামিস্ট ও এসএ বাংলা টিভি’র হেড অফ নিউজ এন্ড সিইও সোহেল সানির জ্ঞান ফিরলেও মারা গেছেন তার ব্যক্তিগত সহকারী মিজান বাবু। সূত্র মতে পা হারানো সিএনজি চালক মারা গেছেন কিনা তা এখনো যানা যায়নি।

উল্লেখ্য, বরিশালে সহপাঠী ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মোহাম্মদ শাহে আলমের ভাই আরিফুল ইসলাম তসলিম ইফতাত্তোর মাগরিবের নামাজে রুকুদান অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না-রাজেউন)।খবর পেয়ে ছুটে যান সাংবাদিক ও সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা সোহেল সানি। দাফনশেষে মিলাদের একদিন আগেই মোটর বাইকে করে ঢাকার বিজয়নগরে পৌঁছান তার আরেক সহর্কমী বাবুকে (বড় বাবু)।

সোহেল সানিকে স্যার সম্মোহন করে জানায় সাংবাদিক শাবান মাহমুদ আপনাকে একুশে টিভির গলিতে যেতে বলেছে। ব্যক্তিগত সহকারী মিজান বাবু কথানুযায়ী একুশে টিভির আড্ডায় মশগুল হলাম।

সেখানে বিএফইউজের মহাসচিব প্রার্থী ও ডিইউজের সাবেক সভাপতি শাবান মাহমুদ ও যুগ্ম সম্পাদক প্রার্থী নাগরিক টিভির প্রধান ব্যক্তিত্ত্ব দ্বীপ আজাদ সহ দুজনেই নির্বাচনের বিষয়ে পৃথকভাবে দুটি ফেইসবুক স্ট্যাটাস দিতে আমাকে অনুরোধ করে এবং হাত ধরে কথা আদায় করে নেয়। একটু পরেই সিএনজি করে যাত্রীবাহী সিএনজিতে উঠে পরি। যাত্রাবাড়ী অতিক্রান্তের একটু অদূরে পেছন থেকে বিকট আওয়াজে আমরা প্রম্প্রকিত হয়ে ওঠি। ধূমরেমুচরে যায় সিএনজিটি। আটকে পড়ি চালকসহ তিনজনই। পথ্যিমধ্যে শত শত মানুষ ছুটে আসে।

হুশ হলে শুনতে পাই যাত্রাবাড়ীথানার এস আই আলাউদ্দিনের নেতৃত্বে একদল বিশাল পুলিশ মানবিক ভুমিকা পালন করেন। পরে গাড়ি কেটে আমাকে জীবীত ও বাবুকে মৃত উদ্দ্ধার করে। চালকসহ আমাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়, নিজেই পুলিশ দল।

সাংবাদিক সোহেল সানি এতটাই গুরুতর আহত হয়েছে যে, সে এখন বসতে বা দাঁড়াতে পারে না।

বি এম এ ‘র সভাপতি ও ছাত্রলীগেরও এককালীন কেন্দ্রীয় সভাপতি এবং আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সম্পাদক ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন পবিত্র ওমরা পালনের উদ্দ্যেশে ঢাকা ত্যাগ করার আগে সাংবাদিক সোহেল সানির পাশে গিয়ে খোঁজখবর নিয়ে জানান, তাঁর উন্নত চিকিৎসা দরকার। বিষয়টি নিয়ে সরকারি পর্যায়েও আমরা আলোচনা করবো।